বাংলাদেশ সর্বশেষ সংবাদ

ব্যবসা করতে চাইলে খাটতে হবে ক্রীতদাসের মত!


চাকরি থেকে ব্যবসা সম্পূর্ণ ভিন্ন একটি বিষয়। আপাতদৃষ্টিতে চাকরি থেকে ব্যবসাকে স্বাধীন ও আরামদায়ক পেশা বলেই মনে হয়। কিন্তু ব্যবসা সবার জন্য নয়। ব্যবসায়ীদের জীবনযাপন কয়েকটি কারণে চাকরিজীবীদের থেকে সম্পূর্ণ ভিন্ন। ব্যবসা শুরু করার আগে এ বিষয়গুলো সবারই জেনে নেয়া উচিত।

আত্ম-নিয়মানুবর্তিতা: কর্পোরেট জগতে দশকব্যাপী থাকার পরেও নিজ উদ্যোগে নিয়মানুবর্তিতার মধ্যে চলার প্রয়োজনীয়তা শেষ হয় না। বিশেষ করে নিজের ব্যবসা যখন নিজেই চালাবেন তখন এ বিষয়টির গুরুত্ব অপরিসীম। অন্যথায় আপনি নিজেই নিজের ব্যবসা নষ্ট করতে পারেন। আর আত্ম-নিয়মানুবর্তিতায় যদি চলতে পারেন তাহলে ব্যবসা সফল হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেড়ে যায়।

খরচ হবে লাগামছাড়া: ব্যবসা শুরু মানে শুধু লাভ করা নয়। এ জন্য আপনাকে নানা ট্যাক্স দিতে হবে। রয়েছে নানা নিয়মিত খরচের ধাক্কা। এ ছাড়াও থাকবে অনাকাক্সিক্ষত নানা খরচ। এসব খরচ সামলানোর জন্য পর্যাপ্ত প্রস্তুতি নিয়েই ব্যবসায় নামতে হবে। অন্যথায় আপনার উদ্যোগ মাঠে মারা যাবে।

খাটতে হবে ক্রীতদাসের মতো: নিজের ব্যবসা মানে তার সবকিছুই আপনাকে দেখতে হবে। সেখানে আপনার পরিশ্রম ছাড়া এগোনো একেবারেই অসম্ভব। আর তাই নিজের ব্যবসায় আপনার পরিশ্রমের কোনো সীমা থাকবে না। কয়দিন, কয় ঘণ্টা পরিশ্রম করলেন, তার হিসাব করা এখানে বৃথা। একজন ক্রীতদাসের মতোই আপনাকে পরিশ্রম করতে হবে।

একাকী জীবন: শীর্ষপর্যায়ের ব্যক্তিদের আদতে একাকী জীবনযাপন করতে হয়। কলিগ, বন্ধু-বান্ধব ইত্যাদির স্বাদ এখানে পাওয়া যায় না। ব্যবসা সফল করার জন্য অনেকেই তাদের সর্বশক্তি নিয়োগ করেন। আর তা করতে গিয়েই অধিকাংশ মেধা ও প্রচেষ্টা ব্যয় হয়ে যায়। ফলে অন্য কাজের ফুরসত পাওয়া যায় না বললেই চলে।

নিরাপত্তাজালের অভাব: চাকরির ক্ষেত্রে আপনার কিছুটা হলেও বেতনের একটা নিশ্চয়তা থাকে। কাজ করলে নিয়োগকর্তার কাছ থেকে আপনার একটা পারিশ্রমিক পাওনা হয়ে যায়। কিন্তু ব্যবসা ক্ষেত্রে এর কোনো নিশ্চয়তা নেই। আপনি কাজ করলেও সে জন্য যে অর্থ পাবেন এমন কোনো কথা নেই বরং এর বিপরীতটাও হতে পারে।

ধারণার চেয়েও কঠিন: আপনার আগ্রহের বিষয় হতে পারে মার্কেটিং, অ্যাকাউন্টিং, ডিজাইনিং কিংবা ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের কোনো একটি বিষয়। সে বিষয়টি নিয়ে আপনি ব্যবসা করতে চান। কিন্তু ব্যবসার জন্য শুধু সে বিষয়টি নিয়ে মাথা ঘামালেই হবে না। এ জন্য আপনার আরো বহু বিষয় মাথায় রাখতে হবে। কারণ আপনি এখানে সবকিছুর নিয়ন্ত্রক। প্রয়োজন অনুযায়ী দক্ষ মানুষকে আপনার বেছে নিয়ে সঠিক কাজের জন্য তাদের নিয়োগ করতে হবে। এরপর তাদের থেকে কাজ আদায় করে নেয়াও আপনার দায়িত্ব হবে।

সবার সঙ্গে মানিয়ে চলতে হবে: ব্যবসার খাতিরে বহু অপ্রিয় বিষয়কেও আপনার হাসিমুখে মেনে নিতে হবে। আপনার ব্যবসা যখন ‘হাটি হাটি পা পা’ তখন আপনার চেষ্টা হবে যতভাবে সম্ভব গ্রাহক যোগাড় করা। আর এ জন্য আপনাকে যথাসম্ভব চেষ্টা করতে হবে। আর এ প্রচেষ্টার অন্যতম উপায় হতে পারে যথাসম্ভব পরিচিতি বাড়িয়ে চলা। এ জন্য আপনাকে ইচ্ছে না থাকলেও সবার সঙ্গে মানিয়ে চলতে হবে।

ধন্যবাদহীন চাকরি: কোনো চাকরির ক্ষেত্রে কঠিন একটি কাজ করলে আপনি ধন্যবাদ পেতে পারেন। কিন্তু ব্যবসার ক্ষেত্রে এমনটা হবে না। এখানে আপনাকে ধন্যবাদ দেয়ার জন্য কেউ এগিয়ে আসবে না।

কাজের বিকল্প নয়: কোনো একটি প্রতিষ্ঠানে অন্যের অধীনে নিয়োজিত থাকলে আপনার যেমন কাজ করতে হবে ব্যবসা ক্ষেত্রেও তার খুব একটা ব্যতিক্রম নয়। ব্যবসা মানে আপনি সারাক্ষণ কাজ না করে বসে থাকবেন, এমনটা ভাবার কোনো কারণ নেই। এটাও একটা কাজ।

ব্যর্থতা আসতে পারে: ব্যবসা ক্ষেত্রে আপনার প্রাণপণ চেষ্টা যে সাফল্য আনবে, শতভাগ নিশ্চয়তা দিয়ে এমনটা বলা যায় না। ব্যবসা মানেই তাতে থাকতে পারে সাফল্য বা ব্যর্থতা। আর তাই ব্যবসায়ীরও সে অনুযায়ী প্রস্তুতি রাখতে হয়। সূত্র: ইন্টারনেট