সর্বশেষ সংবাদ
  • Homepage
  • >
  • সর্বশেষ খবর
  • >
  • স্বাধীনতা সূর্য্যকে ছিনিয়ে এনেছিল বীরমুক্তিযোদ্ধারা: নির্বাচন কমিশনার বেগম কবিতা খানম চৌধুরী

স্বাধীনতা সূর্য্যকে ছিনিয়ে এনেছিল বীরমুক্তিযোদ্ধারা: নির্বাচন কমিশনার বেগম কবিতা খানম চৌধুরী

  • mynews
  • ডিসেম্বর 15, 2017

গাইবান্ধা প্রতিনিধি
বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের প্রথম নারী নির্বাচন কমিশনার আলহাজ্ব বেগম কবিতা খানম চৌধুরী বলেছেন, ডিসেম্বর মাস আমাদের স্বাধীনতা ও বিজয়ের মাস। ৯ মাস ধরে সর্বস্তরের গোটা বাঙ্গালি জাতি এক সাথে ঝাপিয়ে পড়েছিল শত্রু বাহিনীর বিরুদ্ধে। আর এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশের জন্ম। আমরা ধন্য।
বাংলাদেশ নামক মানচিত্রের জন্ম না হলে এসব কিছুই হত না। নিশ্চয়ই এর পিছনে সুযোগ্য নেতৃত্ব ছিল। যা পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল। প্রশিক্ষণ এবং অভিজ্ঞতা ছাড়াই অস্ত্র হাতে তুলে নিয়েছিল সর্বস্তরের জনতা। জীবনকে বাজি রেখে প্রশিক্ষিত একটি বাহিনীকে পরাজিত করে এদেশের স্বাধীনতা সূর্য্যকে ছিনিয়ে এনেছিল তাঁরা। যারা-এই মুক্তিযুদ্ধে বীরমুক্তিযোদ্ধাদের নেতৃত্বে ছিলেন-তাদের এবং যারা শহীদ হয়েছেন-সম্ভ্রম হানি হয়েছেন তাদের বিনম্র মস্তককে জানাই নম্রতা। সালাম-শত কোটি সালাম সেই বীরমুক্তিযোদ্ধাদের। সেইসব শহীদদের আত্মার প্রতি সশ্রদ্ধ সালাম। যে জাতি আত্মোৎসর্গ করতে জানে না-সে জাতি কখনও উদিত হয় না। বাংলাদেশের আজ সবকিছুই ইতিহাস হয়েছে। কাউকে সম্মান দিলে অবশ্যই সম্মান বৃদ্ধি পায়। বাঙ্গালি জাতি আমরা আবেগ প্রবণ। যাদের মধ্যে আবেগ এবং সাহস আছে তারাই কেবল সবসময় এগিয়ে যায়। সাহস-সক্ষমতা থাকলে সব কিছুই অর্জন সম্ভব। পদ্মা সেতু আমাদের সক্ষমতা শিখিয়েছে। নর-নারী মিলে আমাদের জাতি। পরস্পর-পরস্পরকে সার্বিক সহায়তা দানের মধ্য দিয়ে এদেশ এগিয়ে যেতেই থাকবে। তবেই আমরা কাঙ্খিত অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছতে পারবো ইনশাআল্লাহ।
রাজশাহীর প্রাক্তন চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (অতিরিক্ত জেলা জজ) স্বামী মরহুম মসিউর রহমান চৌধুরী যাদু’র গ্রামের বাড়িতে পারিবারিক আয়োজনে চৌধুরী বাড়ির মাঠ প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত এক নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বধূ হিসেবে যোগ দিতে আজ ১৫ ডিসেম্বর শুক্রবার সকালে বেগম কবিতা খানম সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত সফরে গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার মহদীপুর ইউপি’র পার্বতীপুর গ্রামে আসেন। প্রথমে তিনি চৌধুরী বাড়ির পারিবারিক কবরস্থানে শায়িত স্বামী মরহুম মসিউর রহমান চৌধুরী যাদু’র কবর জিয়ারত করেন। পরে তিনি সভামঞ্চে আসন গ্রহণ করলে পারিবারিক ও আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ সংবর্ধনা জ্ঞাপন করে একের পর এক তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা ও ক্রেস্ট প্রদান করেন।
একই ইউপি’র বাসিন্দা রংপুর বেতারের গীতিকার বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ হাসান আজিজুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় তিনি মরহুম স্বামীর স্মৃতিচারণ করে বলেন, আমার নির্ভিক বিচারক স্বামী এবং বাবাসহ পরিবারের সবাই ছিলেন সৎ। তাঁরা সৎ ছিলেন বলেই আমি এতদূর আসতে পেরেছি। বিচার বিভাগ একটি জটিল বিভাগ। আল্লাহর নিকট আমি সবসময় ভরসা রাখতাম। বিচারকার্যে যেন কোন অন্যায় না হয় সেজন্য উনি যেন আমার সহায় থাকেন। এই গ্রামের পুত্রবধূ’র পরিচয় দিতে আমি গর্ববোধ করি। আমি ধন্য। এজন্য সৃষ্টিকর্তার নিকট শোকরিয়া আদায় করছি। নওগাঁয় জন্ম নিলেও এই পার্বতীপুর গ্রামই আমার শেষ ঠিকানা। সর্বোপরি তিনি আরো বলেন, এদেশকে ভালোবাসি। সবার কর্মজীবন সৎ হোক। মানুষের জন্য হোক মানুষ। দেশকে সুখি-সমৃদ্ধশালী ও সুন্দর করতে সবার সহযোগিতা-অবদানের প্রয়োজন। এই গ্রামের বাসিন্দাদের কারো মা-কারো চাচী, কারো ভাবী, আবার কারো বউমাসহ বিভিন্ন জনের নানা সম্বোধনের জবাব দিতে হয়। পুত্রবধূ হিসেবে বলতে চাই-আমরা একসাথে হাঁটবো-চলবো এবং বলবো।
এর আগে সকাল থেকেই এই গ্রামের বধূ নির্বাচন কমিশনার আলহাজ্ব বেগম কবিতা খানমকে একনজর দেখার জন্য পাশের গ্রামগুলো হতে নারী-শিশু ও পুরুষসহ সকলেই চৌধুরি বাড়ির মাঠে সমবেত হতে থাকেন। বেলা বাড়ার সাথে সাথে তা এক সময় জনাকির্ণে পরিণত হয়। সভায় আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সরকারি কলেজ অধ্যক্ষ (অব.) শাহজাহান আলী সরকার, গাইবান্ধা জেলা চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. শহিদুল্লাহ, গাইবান্ধা বার এ্যাসোসিয়েশন সাবেক সভাপতি শামছুল আলম প্রামাণিক, অধ্যক্ষ একরামুল হক খান, আদর্শ ডিগ্রী কলেজ অধ্যক্ষ ছাইফুলার রহমান চৌধুরী, পলাশবাড়ী মহিলা ডিগ্রী কলেজ উপাধ্যক্ষ শামিকুল ইসলাম সরকার লিপন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রহমান, ফারুক চৌধুরী ও মহদীপুর ইউপি চেয়ারম্যান তৌহিদুল ইসলাম মন্ডল প্রমুখ।
সভায় সমবেতরা ঠুটিয়াপাকুর থেকে ফুটানিরবাজার পর্যন্ত সড়কটি মরহুম বিচারক যাদু’র মিয়ার নামে নামকরণের দাবী উত্থাপন করেন। এসময় সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ তোফাজ্জল হোসেন, জেলা নির্বাচন অফিসার মাহাবুবুর রহমান, অধ্যাপক (অব.) আব্দুস সামাদ, থানা অফিসার ইনচার্জ মাহমুদুল আলম, উপজেলা নির্বাচন অফিসার শাহীনুর আলম ও জোহা চৌধুরী ছাড়াও জেলা এবং উপজেলার বিভিন্ন পর্যায়ের প্রশাসনিক কর্মকর্তা, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, ওই গ্রামের কৃতি সন্তান রাজশা

Previous «
Next »
ডিসেম্বর 2017
সোম বুধ বৃহ. শু. শনি রবি
« নভে.   জানু. »
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031