সর্বশেষ সংবাদ

গাইবান্ধা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচনী ফলাফল প্রকাশ

  • mynews
  • ডিসেম্বর 9, 2017

গাইবান্ধাপ্রতিনিধি
গাইবান্ধা জেলা বাস, মিনিবাস, কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের (রেজি নং- রাজ ১০৭) ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনে সভাপতি পদে সাদেকুল ইসলাম মুরাদ এবং সাধারণ সম্পাদক পদে অ্যাড. গৌতম কুমার চক্রবর্তী বিশু নির্বাচিত হয়েছেন।
এছাড়া সদস্যসহ অন্যান্য সকল পদের ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে। শনিবার সকাল দশটার দিকে নির্বাচন কমিশনার মনজুর আলম মিঠু এই ফলাফল ঘোষণা করেন।
শুক্রবার গাইবান্ধা ডিবি রোডে আসাদুজ্জামান গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজে এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ভোট গ্রহণ চলে।
সন্ধ্যা ৬টা থেকে বিভিন্ন পদের ব্যালট আলাদা করা হয়। রাত ৮টা নাগাদ ভোট গণনা শুরু হয়। শনিবার সকাল পযন্ত চলে ভোট গণনা। এরপর ফলাফল ঘোষণা করা হয়।
ছয় সদস্যবিশিষ্ট নির্বাচন কমিশনের প্রধান ছিলেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. শফিকুর রহমান। এছাড়া মনজুর আলম মিঠু, রফিকুল ইসলাম, আজিজার রহমান, ইসতিয়াক হোসেন বাবু এবং শাহজালাল খোকন নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।
নির্বাচন কমিশনার মনজুর আলম মিঠু জানান, অবাধ, নিরপেক্ষ, সুষ্ঠু-সুন্দর এবং শান্তিপূর্ণ পরিবেশের মধ্যে দিয়ে নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন সম্পন্ন হওয়ায় ফলাফল ঘোষণার সময়, তিনি সকল ভোটার, প্রার্থী এবং প্রশাসনের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
গাইবান্ধা জেলা বাস, মিনিবাস, কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়ন (রেজি নং- রাজ ১০৭)র ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনে মোট ভোটারের সংখ্যা ছিল ৩,৯৯২। এরমধ্যে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন ৩৭৩৩ জন। এবারের নির্বাচনে ১৭টি পদের বিপরীতে লড়াই করেছেন ৬৫ জন প্রার্থী। এরমধ্যে সভাপতি ১টি পদের বিপরীতে ২জন, কার্যকরী সভাপতি ১টি পদের বিপরীতে ৪জন, সহ-সভাপতি ১টি পদের বিপরীতে ৩জন, সাধারণ সম্পাদক ১টি পদের বিপরীতে ৩জন, সহ-সাধারণ সম্পাদক ২টি পদের বিপরীতে ৪জন, অর্থ সম্পাদক ১টি পদের বিপরীতে ৪জন, সাংগঠনিক সম্পাদক ১টি পদের বিপরীতে ৪জন, সড়ক সম্পাদক ২টি পদের বিপরীতে ৬জন, দপ্তর সম্পাদক ১টি পদের বিপরীতে ৪জন, প্রচার সম্পাদক ১টি পদের বিপরীতে ৪জন, ক্রীড়া ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক ১টি পদের বিপরীতে ৪জন ও কার্যকরী সদস্য ৪টি পদের বিপরীতে ২৩জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন।
সভাপতি পদে হ্যারিকেন প্রতীক মো. সাদেকুল ইসলাম মুরাদ ১৯০৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্টিয়ারিং প্রতীক মো. আব্দুর রশিদ সরদার পেয়েছেন ১৬৯৭ ভোট। কার্যকরী সভাপতি পদে ফুটবল প্রতীক মো. ময়নুল হক ১২৬৫ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী গোলাপফুল প্রতীক মো. আমিনুর রহমান পেয়েছেন ১২২৩ ভোট। সহ-সভাপতি পদে মাছ প্রতীক মো. আশরাফুল ইসলাম বাদশা ২০৩৮ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হাঁস প্রতীক মো. নুরুন্নবী সরকার মিঠুল পেয়েছেন ৩৯৯ ভোট। সাধারণ সম্পাদক পদে চাবি প্রতীক ১৭৮৭ ভোট পেয়ে আবারও নির্বাচিত হয়েছেন গৌতম কুমার চক্রবর্তী বিশু। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হাতুড়ি প্রতীক মো. জামিনুর রহমান জামিন পেয়েছেন ১৬১৮ ভোট। সহ-সাধারণ সম্পাদক এর ২টি পদে নির্বাচন করেছেন ৪জন প্রার্থী। এরমধ্যে তাজমহল প্রতীক ১৫৮৭ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন মো. হাসান মাহমুদ ডলার এবং খেজুরগাছ প্রতীকে মো. আব্দুর রাজ্জাক পেয়েছেন ১৫৪৯ ভোট। তাদের নিটকতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী কাচি প্রতীক মো. রওশন মিয়া পেয়েছেন ১,৩৬৫ ভোট।
সাংগঠনিক সম্পাদক পদে নির্বাচন করেছেন ৪ জন প্রার্থী। এরমধ্যে তলোয়ার প্রতীক ১৩৮৫ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন মো. শামীম রহমান। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী পাঞ্জা প্রতীক মো. মশিউর রহমান হীরা পেয়েছেন ১১৩২ ভোট। অর্থ সম্পাদক পদে নির্বাচন করেছেন ৪জন প্রার্থী। এরমধ্যে একতারা প্রতীক ১৩০৬ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন মো. আমজাদ হোসেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী প্লায়ার্স প্রতীকে মো. হারুন অর রশিদ পেয়েছেন ১২৬০ ভোট।
সড়ক সম্পাদক এর ২টি পদে নির্বাচন করেছেন ৬ জন প্রার্থী। এরমধ্যে বাস প্রতীক ১৬৪১ ভোট পেয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন মো. শহিদুল ইসলাম শহিদ এবং ঘোড়া প্রতীক মো. সুমন মিয়া পেয়েছেন ১১১৪ ভোট। তাদের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী কাপ-পিরিচ প্রতীক মো. রাজা মিয়া পেয়েছেন ১০৬৬ ভোট।
দপ্তর সম্পাদক পদে নির্বাচন করেছেন ৪জন প্রার্থী। এরমধ্যে মাইক প্রতীক ১২০১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মো. আশরাফুল আলম ফরিদ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মোবাইল প্রতীক মো. ফিরোজ কবীর পেয়েছেন ৯৩৮ ভোট।
প্রচার সম্পাদক পদে নির্বাচন করেছেন ৪জন প্রার্থী। এরমধ্যে সিলিংফ্যান প্রতীক ১০০০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মো. হাফিজার রহমান। তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী চেয়ার প্রতীকে মো. নজরুল ইসলাম পেয়েছেন ৯৪০ ভোট।
ক্রীড়া ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক পদে নির্বাচন করেছেন ৪জন প্রার্থী। এরমধ্যে টেলিভিশন প্রতীক ১১৪৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মো. ওয়াহেদুল মিয়া। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ক্রিকেট ব্যাট প্রতীকে বাবুল আহম্মেদ পেয়েছেন ৯২৬ ভোট।
এছাড়া কার্যকরী সদস্য এর ৪টি পদে লড়াই করেছেন ২৩ জন প্রার্থী। এরমধ্যে বালতি প্রতীক ৯৭৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মো. ময়নুল ইসলাম, বক প্রতীকে ৯৩০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মো. সাইদুর রহমান, টায়ার প্রতীক ৮২১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মো. সজিব মিয়া, রিকশা প্রতীক ৭৩৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন মো. মিলন মিয়া।
গাইবান্ধা জেলা বাস, মিনিবাস, কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়ন (রেজি নং- রাজ ১০৭)’র ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনকে ঘিরে শুক্রবার সকাল থেকেই শহরের ডিবি রোডে আসাদুজ্জামান গার্লস স্কুল এন্ড কলেজের সামনে প্রার্থীদের সমর্থক ও ভোটারদের উপচেপড়া ভিড় চোখে পড়ে। ভোটকেন্দ্রের ভেতরে সুশৃঙ্খল ও শান্তিপূর্ণভাবে ১০টি বুথে ভোটাররা ভোট দিয়েছেন। প্রার্থীদের সমর্থকেরা খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে রাস্তায় আনন্দ উল্লাস করেছে।

Previous «
Next »
ডিসেম্বর 2017
সোম বুধ বৃহ. শু. শনি রবি
« নভে.   জানু. »
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031